ডিজিটাল-মার্কেটিং-কেন এবং কতটা

প্রথমেই বলে রাখি ডিজিটাল মার্কেটিং হালকা বা ছোট কোন বিষয় নয়। ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের কদর এত বেড়েছে যে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অবস্থা হয়েছে ছাগলের সাড়ে সাত নম্বর বাচ্ছার মত।এটা অবশ্য কিছু কিছু স্ব-ঘোষিত সনদধারীর হালকার উপর ঝাপসা ও মেয়াদ উত্তীর্ণ নলেজের প্রভাবে ঘটেছে।যাই হোক সে ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না এখন।।

মুলত সিরিজটি শুরু করেছি ব্যবসায়ি ভাইদের জন্য।আজকাল অনেকেই তাদের ব্যবসায় অনলাইন ইন্ট্রিগ্রেশন করেছেন ,তবে তা খুব সীমিত আকারে।হয়তোবা কোনরকম একটা ওয়েবসাইট ্আর কেউ কেউ পেইড অ্যাড- এর বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন ফেসবুক পেজে।আদেও এতে কোন কাজ হয় নাকি মুলোর লোভে মুক্ত ছড়াচ্ছেন উলুবনে?প্রকৃতপক্ষে ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের পাশাপাশি সুপরিকল্পিত বিপণন ব্যবস্তা আপনাকে সফলতা এনে দিতে পারে।

আমাদের দেশে এখনও গতানুগতিক মার্কেটিং কেই বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়।বেনার,ফেস্টুন ও রাস্তার পাশে বড় বড় বিলবোর্ড গুলো তারই প্রমান। এমনকি বেশিরভাগ কোম্পানি মনে করে ,যেহেতু আমরা ভাল পণ্য বিক্রি করি সেহেতু আমার দরকার নেই সবাইকে জানানোর ,সময় হলে তারাই আসবে আমাদের দরজায় ।আচ্ছা একবার ভাবুনতো এই বেনার,বিলবোর্ড আপনি কাকে দিলেন?তারা কেউ কি আপনার কাস্টমার?এটা অনেকটা ঐরকম হয়ে গেলনা যে ,আপনি জানেন যে পানিতে মাছ বাস করে ,তাই আপনি যেখানেই পানি দেখছেন সেখানেই জাল ফেলছেন।মাছ কি পাবেন একটাও? ভাগ্য ভাল হলে পেতেও পারেন ।

কিন্তু শুধু ভাগ্য দিয়ে কি আর দীর্ঘমেয়াদী সফলতা আশা করা যায়?অথচ স্ট্রাটেজি ঠিক রেখে ডিজিটাল মার্কেটিং করতে পারলে আপনার জালটি ঠিক জায়গায়ই পড়বে ,আপনি মাছও পাবেন বেশি আবার পরিশ্রমও কম হবে। কারন এখন আপনি জানেন কোন নদী বা পুকুরে ,কোন সময় কি ধরনের জাল ফেলতে হবে। এই কাজটিই সহজ করে দেয় ডিজিটাল মার্কেটিং। তাই এই পরিবর্তিত সময়ের সাথে আমাদের ব্যবসার ধরন ও বিপণন ব্যবস্তা দুটোই পরিবর্তন করা উচিৎ বলে মনে করি,তা আপনার ব্যবসা ছোট ,বড় কিম্বা নতুন পুরাতন যাইহোক না কেন।কেননা আপনার ব্যবসার ধরন যাইহোক এখন আপনি অনলাইনে ক্রেতা পাবেন পাবেন ঝাকে ঝাকে। আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি ছোট প্রতি ষ্ঠানগুলি একটু স্লো ডিসিশন নেয় ,অনেকে আবার নানা রকম বাহানা খোজে অনলাইন মার্কেটিং এড়ানোর জন্য ।কেননা তাদের ধারনা এই যে ,এখানে অনেক বেশি চ্যালেঞ্জ এবং এখানে বস্তা বস্তা ডলার খরচ হয়। আসলে ধারনাটা মোটেও সঠিক নয়।

কেউ কেউ আবার ফার্মগেট বা গুলিস্তান থেকে পাইকারি দামে কিছু ডিজিটাল সার্ভিস নেয় বটে কিন্তু তাতে কাজের কাজ কিছুই হয় না,বরং ক্রেতারা আরও অনলাইন বিমুক বা অন্য বিক্রেতার কাছে চলে যেতে পারে। কিছু কিছু ভুল ধরনার কারনে আমাদের অনেক ব্যবসায়ি ভায়েরা হারিয়ে যাচ্ছে অকালে।সম্ভাবনাময় ছাত্রের পরিবর্তে ভবিষ্যতে তাদের খেতাব কি দেওয়া যায় সেটা না হয় আপনারাই ঠিক করে নেবেন।প্রিয় ভায়েরা ।আপাতত শুধু একটা প্রশ্নের উত্তর দেন,আপনি কি ব্যবসাটাকে আপনার টাইম পাসের মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করতে চান?

যদি তাই চান তাহলে উদ্যানে যান না হয় ফ্রেন্ডকে নিয়ে দোতলা বাসে উঠে পড়ুন।আর একটা কথা পরিকল্পনা ঠিক রেখে ডিজিটাল মার্কেটিং করলে বস্তা বস্তা ডলার লাগেনা,শুধু সঠিক সময়ে সঠিক কাজটি করলেই হয়। যেমন ধ্রুন আপনি এখন গড়িমসি করছেন ,শুধু ফেসবুক পেজ বা কোনরকম একটা ওয়েবসাইট করে আরাম কেদারায় বসে দুইপা নাচানো শুরু করেছেন,ঠিক এই সময়ে কোন এক ক্রেতা আপনার টাইপ পণ্যের খোজ শুরু করল ,সে আপনার অগোছালো ফেসবক পেজ ও ওয়েবসাইট দেখেই বুঝে ফেলবে যে আপনার কোন ভেলু নাই, সোশ্যাল মিডিয়ার দুনিয়ায় ও আপনার কোন খানা নাই ।ফলে সে আপনার কাছ থেকে পণ্য কেনার মত বিশ্বাস খুজে পাবে না ।আর এখনতো রিভিউগুলো রেফারেন্স মার্কেটিং এর মত কাজ করে ,আপনার কপালে তাও জুটবে না, অন্যদিকে আপনার কম্পিটিটর গ্রাফিক্স ,ভিডিও ,এনিমেশন এরকম নানা কিছু দিয়ে আপনার কাস্টমারকে তাদের কাস্টফ্রেন্ডে পরিণত ফেলছে।

আর আপনি বসে বসে পুরনো দিনের ছায়াছবি দেখছেন। ছবি শেষে দেখবেন আপনার কম্পিটিটর আপনার মাস্টার হয়ে গেছে,তার কাছ শিখতে হবে আপনি কিভাবে হাটবেন বা কোন পথে নিতাইগঞ্জে যাবেন।ভাই বলি কি ব্যবসা করতে চাইলে ঘটী বাটি,খেতা কম্বল যা আছে তাই নিয়ে লঞ্চে উঠে পড়ুন তা না হলে আপনার প্রতিস্টান বড় ভাই নোকিয়া বা ফুজির মত ফিউজ হয়ে যেতে পারে। শেষ পর্যন্ত বিশেষ খালিতে গেলেও আপনার প্রতিস্টানের ঠিকানা খুজে পাওয়া যাবে না।

যাইহোক এলোমেলো বকবকানিতে আপনাদের আর বিরক্ত করছিনা।এখন শর্টকাটে এই ওষুধের কয়টা গুনাবলি বলছি

১। গতানুগতিক ধারা থেকে কম খরছে অধিক মানুষের কাছে আপনার ব্রান্ড পরিচিতি পাবে।

২।আপনি সুনির্দিষ্ট ভাবে আপনার টার্গেট গ্রপকে আপনার ক্রেতা বানানোর সুযোগ পাবেন।

৩।অন্ধকারে ঢিল না ছুড়ে আপনার কেম্পেইনে কাজ হচ্ছে কিনা বা কত খরচে কি পরিমান আউটকাম আসছে তা সাথেসাথেই জানতে পারবেন।

৪।আপনি কোন বিশেষ এলাকা নয়,বিস্তর এলাকা জুড়েই আপনার বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবেন,ঘরে বসে চলতে পারে না এমন মানুসকেও আপনি আপনার ক্রেতা বানানোর সুযোগ পাবেন।

৫।ডিজিটাল মার্কেটিং চলাকালে ক্রেতা সরাসরি মালিকের সাথে কথা বলছে এমন মনোভাব নিয়ে যোগাযোগ করে,এই সময়ে আপনি তাদেরকে আরো ভালভাবে বুঝতে পারবেন এবং ভবিষ্যতে তাদেরকে আরো ভালো সার্ভিস দিতে পারবেন।।

সকলে সুস্থ থাকুন ভাল থাকুন এবং পরিমাপ যোগ্য উন্নতি করতে থাকুন ঘন্টায় ঘন্টায় ।

Writer: Al Imran

Author

Write A Comment