এ আই এর এই উদ্ভাবন

 

কল্পনা শক্তি টেকনিকাল মানুষদের অন্যতম বড় শক্তি আর স্কিল এ আই এর এই উদ্ভাবন হয়ত দুনিয়াকে সবুজ করে তুলবে কিংবা মরুভূমি। কোন এক ভাবনা থেকে আমি এ আই থেকে অনেক দূরে থাকতে চাই সব সময়। তবে পজেটিভ ভাবে এ আই ব্যবহৃত হোক এই চাওয়া আমারো আছে। আমার চিন্তা গুলো আরো বেশি মাথার উপর দিয়ে যায়। আমি থমকে উঠি প্রেম ভালোবাসাহীন কিংবা মানবতাহীন বিশ্বকে নিয়ে ভেবে। বিজ্ঞানের অতি উন্নয়ন এর কারনে জৈবিক ভালোলাগা থেকে মানূষ দূরে চলে যাবে ।

এক সময় হয়ত মানুষ শিশু উৎপাদন করবে। সুখ, দুক্ষ কিংবা কস্টের অনুভুতি গুলো বোতলে করে পাওয়া যাবে। আমাদের পরবর্তী ১০ম প্রজন্ম হয়ত আইস্ক্রিম এর পরিবর্তে বলবে একটু দেবদাস ফিলিংস দেন খেয়েই কয়েক মিনিট দেবদাস ফিলিংস নিয়ে নেবে। এক সময় মানূষের খাদ্য বা বস্ত্রের প্রয়োজন ফুরিয়ে যাবে কিংবা কমে যাবে জঘন্য মাত্রায়। এক সময় হয়ত বিভিন্ন গ্রন্থকে মাথার ভিতর ঢুকিয়ে দেয়া হবে এক নিমিষে – বিকাল বেলা ইছামতির তীরে বসে ভুট্টা পুড়া খেতে খেতে কেউ হয়ত শ্রিকান্ত পড়বে না।

একসময় আর বইমেলাও হবে না ( মানুষের লেখার মত কিছু বাকি থাকবেনা)। একসময় মানুষ বহুমুখী হবে (আলিফ লাইলার মত)। একসময় মানুষ নিজের বিভিন্ন অংগ মোবাইল কেসিং, ক্যামেরার মত চেঞ্জ বা আপডেট করবে। মানুষ হয়ত সৌর তাপেই বেচে থাকবে মানুষ। তারপরেও মরতেই হবে কোন এ আই কাজে দিবে না। হয়ত দেয়ালের ফ্রেমের পরিবর্তে ৪০ মাত্রিক হলোগ্রাফী ফ্রেমে বেধে দেয়া হবে মৃত মানুষের স্মৃতি। হয়ত মায়ের দুধ খাওয়া লাগবে না। হয়ত ফুল ফোটানো লাগবে না কিংবা ফুলের সুবাস ইচ্ছা করলেই বানানো যাবে ল্যাবে । আমি আসলেই এমন উন্নয়নের বিপক্ষে। যদি এ আই মানবিকতা বাড়ানোর জন্য ব্যবহৃত হোক যেমন কারো রোগ হবার আগেই বলে দিক এটা খেলে রোগ হবে। হাসপাতাল গুলো ঊঠে যাক। পুলিশ ঊঠে যাক।

বিজ্ঞানের উন্নয়ন আমি ভালোবাসি তবে মানবিক তৃপ্তি গুলোকে ছাড়া পৃথিবী ভাবি না। রোবট হোক তবে এমন রোবট চাই না যা নিজেই রোবট বানাবে। আমি এমন রোবট চাইনা যা নিখুঁত রান্না করে দিবে। আমি মাঝে মাঝে রান্না করে লবন মিশ্রিত কিংবা খুত ওয়ালা তরকারি গুলো খেতেই পছন্দ করব।

জ্যাম ঊঠে যাক কয়েক তলা রাস্তা হোক, তবে জানালার পাশে মাথা দিয়ে চুল উড়ানো কিংবা বৃষ্টির ফোটা বেচে থাক।

আড্ডা হোক হাতে ধরে, পিঠ থাবায়ে কিংবা মুখ ভাঙায়ে। বন্ধুত্ব আর ফুচকাও বেচে থাক।

আরো অনেক ভাবনা আছে। আমি অনেক উপর দিয়ে ভাবি। ইমোশনাল ও বটে। আমার ভাবনা গুলো লিখব কখনো হয়ত। আমার মা, মাটি, ধর্ম, সততা, বৃষ্টি, শীতের সকাল কিংবা বিকালের গোধুলী বেচে থাক এই চাওয়া। আমার সংসার হোক আমার মেয়েকে কোলে নিয়ে, আদর্শলীপি হাতে রেখে তোতলা মুখে আদো আদো করে স্বরে অ আ বলতে বলতে। 

Author

Write A Comment