ওয়েব সাইট এর ধরন সমূহঃ

 

আমরা যারা ওয়েব সাইট করতে যাই তারা সাধারনত বলে থাকি আমার একটা ওয়েব সাইট দরকার , কেউ কি কম দামে করে দিতে পারবেন ? ওয়েব সাইট বানাবার সময় আমাদের অনেক গুলি দিক খেয়াল রাখা দরকার যা আমারা কি ধরনের ওয়েব সাইট বানাতে চাই তা বেছে নিতে সাহায্য করবে ।

সাধারনত আপনি যখন আপনার প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন তখনই প্রতিষ্ঠান কি ধরনের হবে তা নির্ধারন করে ফেলেন । ধরুন একটি স্কুল করবেন আপনি জানেন আমি কিন্ডার গার্ডেন করব , নাকি ইংলিশ মিডিয়াম নাকি মাধ্যমিক বা অন্যান্য । দোকান করতে গেলে ভাবেন যে আমি বড় দোকান দিব । নাকি ছোট দোকান দিব । তেমনি আপনি আপনার ওয়েব সাইট তৈরির আগেই আপনার প্রয়োজন বা আপনার প্রতিষ্ঠান এর জন্য কোন ধরনের ওয়েব সাইট প্রয়োজন তা জানা থাকলে তা আপনার ওয়েব সাইট তৈরির উদ্দেশ্য অনেকাংশেই সফল হবে । যাই হোক আমার আগের পোস্ট যারা পড়েছেন তারা এই ব্যাপারে কিছুটা হলেও ধারনা রাখেন বলে আমি মনে করি । আজকের পোস্ট এ বর্ণনা করার চেস্টা করব আপনার প্রতিষ্ঠানের ধরন অনুযায়ী কি ধরনের ওয়েবসাইট করা প্রয়োজন ।

প্রোমো ওয়েব সাইট ( স্টাটিক ওয়েবসাইট:) – ধরুন আপনি বাসার চুলা ঠিক করেন , ইদুর মারেন , ছার পোকা মারেন  বা কোন একটা সার্ভিস দিয়ে থাকেন যে সার্ভিস নিতে কাস্টমার বা সেবা গ্রহিতার শুধু মাত্র আপনার যোগাযোগ এর ঠিকানা পেলেই হবে । সে ক্ষেত্রে আপনি যেমন লিফ্লেট বানান স্টাটিক সাইট গুলি অনেক অংশেই ঠিক তেমন । কিছু তথ্য ও আপনার যোগাযোগ এর ঠিকানা ও মোবাইল , ইমেইল নিয়ে এই সাইট গুলি তৈরি হয় । এই সাইট গুলি অনেক হাল্কা হয় কারন তা শুধুইমাত্র একটি পেজ বা ২ থেকে ৩ টি পেজ নিয়ে তৈরি । আরো ভালো বাংলায় বললে স্টাটিক বা প্রমো ওয়েব সাইট গুলি এই ভাবে বিভক্ত করা যায় – এক পেজের অসুন্দর অগোছালো ওয়েব = পোস্টার । ২ থেকে ৩ পেজের অগোছালো ওয়েব = ব্রুশিয়ার । খুব সুন্দর করে সাজানো এক পেজের = বিল বোর্ড । কয়েক পেজের অনেক সুন্দর করে সাজানো = স্লাইডিং বিল বোর্ড । একটু ঝক্মকে সুন্দর সাজানো ওয়েব সাইট = লাইটিং বিলবোর্ড ।

সিস্টেমেটিক বা ডাইনামিক ওয়েবসাইটঃ এধরনের ওয়েবসাইট গুলি সাধারনত কয়েক পেজের হতে পারে যার কোন সিমানা নাই । অনেকটা ক্যাটালগ , মানুয়্যাল বই , সার্ভিস বই ইত্যাদির মত । আপনি চাইলেই ইচ্ছা মত পেজ এড করতে পারবেন , পেজের ভেতর প্যারা এড করতে পারবেন , প্যারার ভেতর পয়েন্ট এড করতে পারবেন । সাধারনত আপনার ওয়েবসাইট দিয়ে যদি সিস্টেমেটিক কোন কিছু করার ইচ্ছা থাকে – তা যত ছোটই হোক না কেন তার জন্য আপনার এধরনের ওয়েবসাইট দরকার হবে ।

মানে ধরেন আপনার প্রতিষ্টান এ যারা আসবে তাদের তালিক আপনি রাখতে চান – সাধারনত আপনি একটি এটেন্ডেন্স সিস্টেম রাখেন তার জন্য । লিফ্লেট করলে সেখানে তো আর তালিকা করতে পারবেন না । যাই হোক ওয়েব এর ক্ষেত্রে ডাইনামিক সাইট এ ফর্ম তৈরি করে আপনি তালিকা করতে পারবেন বা রেস্পন্স নিতে পারবেন ।

প্রমো সাইট কে সোজা বাংলায় বিশ্লেষন করা গেলেও – ডাইনামিক সাইট কে অত সহজে বিশ্লেষন করা যাবেনা । তারপরেও একটা প্রচেষ্টা করে দেখা যাক – ডাইনামিক ওয়েব বা সিস্টেম গুলি আপনার স্বপ্নের সমান বিস্তৃত , আপনি যা কল্পনা করতে পারবেন ডাইনামিক ওয়েব বা সিস্টেম দিয়ে তা করা সম্ভব যদি এবং কেবল যদি আপনি আপনার স্বপ্নকে লজিক দিয়ে বর্ণ্না করতে পারেন । এর পরেও কিছু প্রচলিত ডাইনামিক ওয়েবসাইট বা সিস্টেমের ধারনা দিই ।

১. ইকমার্সঃ কমার্স মানে ব্যবসা ভিত্তিক পরিচালনা ব্যবস্থা কে ইলেক্ট্রনিক মাধ্যমে রুপান্তর ই ইকমার্স । অনেকটা ক্লাসের লেকচার এর মত হয়ে গেল – আমি আবার কিতাবি স্টাইলে লিখে শান্তি পাইনা তাই বাংলা ভাষায় বললে যে কোন কিছুর তথ্য অনলাইন এ পাঠিয়ে তার মাধ্যমে কোন সেবা বা পন্য গ্রহন করা এবং প্রদান করায় ইকমার্স । অর্থাৎ তথ্য প্রবাহের মাধ্যমে সেবা বা পন্য গ্রহন করা ও প্রদান করায় ইকমার্স । যেহেতু ওয়েবসাইট নিয়ে লিখছি সেহেতু ইকমার্স ওয়েবসাইট এই ফিরে যায়ঃ

ইকমার্স ওয়েবসাইট কয়েক প্রকারের হয়ে থাকেঃ

জেনারেল ইকমার্স – জেনারেল স্টোরঃ এধরনের ইকমার্স সাইট গুলি বিভিন্ন ক্যাটেগরির পন্য সংগ্রহ করে তা ক্রেতার সামনে ( মানে ওয়েবসাইট এ ) প্রদর্শন করিয়ে তা বিক্রি করা ও তার হিসেব রাখায় সাধারনত জেনারেল স্টোর বা জেনারেল ইকমার্স ওয়েব সাইট গুলির মূল বৈশিষ্ট । দোকান দেখতে কেমন হবে তা হচ্ছে এই দোকান গুলির ডিজাইন বা ওয়েব সাইট এর ডিজাইন ।

  • নিস ইকমার্সঃ যে দোকানে শুধু মাত্র একটি বা একধরনের পন্য পাওয়া যায় তাই নিস ইকমার্স , সাধারন জিবনে পিঠার দোকান , কাথা বালিশের দোকান , চায়ের দোকান , লোহার দোকান , চমাড়ার পন্যের দোকান ইত্যাদি নিশের উদাহরন ।
  • সেবা ভিত্তিক ইকমার্সঃ সাধারন জীবনে ডাক্তার খানা , পার্লার , এসি মেরামত করন ইত্যাদি সেবা , আইনি সেবা , পরামর্শ প্রদান ইত্যাদি সেবা ভিত্তিক যে ব্যবসা গুলি আছে তার অনলাইন রুপই সেবা ভিত্তিক ইকমার্স ।
  • মার্কেটপ্লেসঃ সোজা বাংলায় বসুন্ধরা সিটি , যমুনা ফিউচারপার্ক কিংবা আইডিবি ভবনের অনলাইন রুপই হচ্ছে মার্কেটপ্লেস । মার্কেটপ্লেস একইধরনের পন্যের হতে পারে এবং ব্রড বা সব কিছুর জন্য হতে পারে । যেমন লেয়াকত , মোশারফ , সালাম সবাই সবজি বিক্রি করে একই বাজারে তাহলে সেটা সবজি মার্কেটপ্লেস । আবার ডি এন সিসি মার্কেট বিভিন্ন বিক্রেতা বিভিন্ন পন্য বিক্রি করেন যা একটি জেনারেল মার্কেটপ্লেস এর বৈশিষ্ট ।

২. সিস্টেম ভিত্তিকঃ বিভিন্ন ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক কার্যক্রম কে একটি সিস্টেম এর আওয়াতাধীন করে পরিচালনার জন্য এধরনের ওয়েবসাইট বা ওয়েব সিস্টেম তৈরি করা হয়ে থাকে । ধরুন আপনার একটা স্কুল আছে যার ভর্তি , বেতন , স্যারেদের ক্লাস বিভাজন ইদ্যাতি কার্যক্রম রয়েছে । এগুলাকে অনলাইন মনিটরিং এর জন্য আপনি যদি কোন সিস্টেম ডেভেলপ করতে চান তাহলে সেটায় হবে আপনার কাংখিত সিস্টেম ওয়েব ।

৩. তথ্য ভিত্তিকঃ সাধারনত বিভিন্ন ধরনের তথ্য প্রকাশ এর জন্য যে ওয়েব সাইট করা হয় । আপনার পত্রিকাকে অনলাইন এ নিয়ে আসলে সেটা অনলাইন নিউজ পেপার । ম্যাগাজিন কে নিয়ে আসলে অনলাইন ম্যাগাজিন বা ব্লগ । এক্ষেত্রে বিষয় ভিত্তিক বা সব বিষয় মিলে একটি সাইট হতে পারে ।

পরবর্তী লেখাঃ কিভাবে আমার ওয়েব সাইট এর ফিচার ও ফ্লোচার্ট রেডি করব ?

Author

Write A Comment